মঙ্গলবার, অক্টোবর ৪, ২০২২

কলারোয়া নিউজ

প্রধান ম্যেনু

সাতক্ষীরার সর্বাধুনিক অনলাইন পত্রিকা

সঠিক তদন্ত হলে মুখোশ উন্মোচিত হবে : মির্জা ফখরুল

নিউজ ডেস্ক : সরকার জঙ্গিবাদের উস্কানিদাতাদের গণআদালতে বিচারের কথা বলছে, জঙ্গিদের উসকানিদাতা কারা? সেটা তো করছে না। যারা জঙ্গিবাদে অভিযুক্ত হচ্ছে, তাদেরকে সঙ্গে সঙ্গে মেরে ফেলছেন।

পরে তদন্ত হচ্ছে না, জানা যাচ্ছে না। সম্ভবত, এ কারণেই কি জানা যাচ্ছে না যে, যদি সঠিক তদন্ত হয়, সত্য উদঘাটিত হয়, তাহলে আপনাদের চেহারা বদলে যাবে, মুখোশ উন্মোচিত হবে।

বুধবার সন্ধ্যায় রাজধানীর সেগুনবাগিচায় কচিকাচার মিলনায়তনে প্রয়াত চিত্রপরিচালক চাষী নজরুল ইসলামের দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষ্যে আয়োজিত এক সভায় বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম এসব কথা বলেন। সভায় বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা সাংবাদিক শওকত মাহমুদ, কবি আবদুল হাই শিকদারসহ অনেকে বক্তব্য রাখেন।

ফখরুল বলেন, সরকার জনসভা করে, সরকারের মদদপুষ্ট বিরোধী দলের এরশাদও করেছেন। যারা তথাকথিত মহাজোটে রয়েছেন, তারাই সমাবেশ করতে পারছেন। আজ এক-এগারো। সম্পূর্ণ বেআইনিভাবে সংবিধান সম্মত সরকারকে উৎখাত করে একটি বেআইনি সরকার প্রতিষ্ঠা পাওয়ার দিন। এক-এগারোর ভয়ঙ্কর ষড়যন্ত্রের চেহারা জাতি দেখতে পেয়েছে।

তিনি বলেন, এক-এগারোর উদ্দেশ্য ছিল বিরাজনীতিকরণ। ১০ বছরে এখন ভিন্ন আঙ্গিকে বিরাজনীতিকরণ চলছে। কীভাবে জাতীয়তাবাদী দর্শন ও রাজনীতিকে ধ্বংস করা যায়, সে চেষ্টাও চলছে। এর ধারাবাহিকতা এখনও চলছে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ইঙ্গিত করে ফখরুল বলেন, দেশে আইনের শাসন, সুশাসন, কোথায় কীভাবে আছে, আমরা বুঝতে পারি না। কারণ, সব কিছু এখন একাকার হয়েছে। একজনই রাষ্ট্রপ্রধান। একজনই সরকার প্রধান। বিচারেরও প্রধান, তদন্তেরও প্রধান।

বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়াকে নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যের বিষয়ে তিনি বলেন, কোর্টে এ বিষয়ে মামলা চলছে। আর উনি রায় দিয়ে দিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী আপনি একটি সরকারের প্রধান? আপনি নির্বাহী ব্রাঞ্চের প্রধান? একটি মিথ্যে মামলা হয়েছে, সেই মামলার অনুসন্ধান হয়েছে, এখন বিচার চলছে। আর আপনি ইতোমধ্যে অনুসন্ধানও করে ফেলেছেন, অভিযুক্তও করেছেন, ট্রায়ালও করে বলছেন যে, টাকা চুরি করেছেন। এখন আর বিচারকের প্রয়োজন আছে, রায় দেয়ার?

ফখরুল আরও বলেন, আপনি নির্বাহী ক্ষমতার চিফ হিসেবে যখন এমন বক্তব্য দেন, সেই রায় কোন দিকে যাবে, তা আমরা সহজেই বুঝতে পারি। একজন সরকার প্রধান হয়ে সাবেক একজন প্রধানমন্ত্রীর মামলায় কথা বলতে থাকেন, তখন রায় কি হবে, আমরা জানি।

তিনি বলেন, একটি সহায়ক সরকারের অধীনে নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হলে দেশে শান্তি আসবে। আজকে আওয়ামী লীগের সংলাপ হয়েছে। শেষ পর্যন্ত রাষ্ট্রপতি কি করবেন, তার উপরে নির্ভর করবে, নির্বাচন কমিশনের ভবিষ্যৎ।

একই রকম সংবাদ সমূহ

ট্রাম্পের হয়ে প্রচারণা চালানো মোদি’র তা ভারতের পররাষ্ট্রনীতির পরিপন্থী

২০২০ সালের মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনকে সামনে রেখে বর্তমান প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ডবিস্তারিত পড়ুন

ছাত্রদলের কাউন্সিল: ৮ভোটে হেরে গেলেন কেশবপুরের সেই শ্রাবণ

জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের কাউন্সিলে সভাপতি পদে মাত্র ৮ ভোটে হেরে গেছেনবিস্তারিত পড়ুন

ছাত্রদলের নতুন সভাপতি খোকন, সম্পাদক শ্যামল

কাউন্সিলরদের প্রত্যক্ষ ভোটে নতুন নেতৃত্ব পেল বিএনপির সহযোগী সংগঠন ছাত্রদল।বিস্তারিত পড়ুন

  • প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৩৭টি পদক লাভ
  • ড. কালাম ‘এক্সিলেন্স এওয়ার্ড’ গ্রহণ করেই দেশবাসীকে উৎসর্গ করলেন প্রধানমন্ত্রী
  • শোভন-রাব্বানী বাদ, ছাত্রলীগের নেতৃত্বে জয় ও লেখক
  • শোভন-রাব্বানীকে পদত্যাগের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর
  • তৃণমূল থেকে সংগঠনকে গড়ে তুলতে হবে: প্রধানমন্ত্রী
  • কয়েক ঘণ্টার মধ্যে শোভন-রাব্বানির ভাগ্য নির্ধারণ
  • পরিকল্পিতভাবে উন্নয়ন পরিকল্পনা গ্রহণ করতে হবে : প্রধানমন্ত্রী
  • বিএনপি অর্থ-সম্পদ অর্জনে বেশি ব্যস্ত ছিল: প্রধানমন্ত্রী
  • বিশ্বের শীর্ষ নারী নেতৃত্বের তালিকায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা
  • আগুন নিয়ে খেলতে বারণ করলেন শামীম ওসমান
  • ৮ সেপ্টেম্বর থেকে বিদ্রোহী প্রার্থীদের চিঠি দেয়া হবে : ওবায়দুল কাদের
  • মইনুল হোসেন ফের কারাগারে